ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করার পর ১১ টি গুরুত্বপূর্ণ সেটিং অবশ্যই করবেন

এই পোস্টটি আমাদের ওয়ার্ডপ্রেস টিউটোরিয়াল সিরিজের একটি অংশ। আজকে আমরা শিখব, ফ্রেশ ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করার পর যেভাবে সেট আপ করবেন।

ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করার পর যে কাজগুলো অবশ্যই করবেন। 

যখন আমরা ওয়ারপ্রেস ইন্সটল করি, স্টক ইন্সটলেশন হিসেবে  কিছু  ডাম্মি পোস্ট, কমেন্ট, পেজ ইত্যাদি থাকে।

তাই প্রথমে যে কাজটি করতে হবে..

১.ডিফল্ট পোস্ট, পেজ, কমেন্ট ডিলিট করে দিন

ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাসবোর্ডে লগইন করুন,, Post<All post এবং ডিফল্ট “Hello world” পোস্ট ডিলিট করে দিন।

একইভাবে, pages<all pages এবং ডিফল্ট “simple page” ডিলিট করে দিন।

এবং সব শেষে, কমেন্ট অপশন থেকে ডিফল্ট কমেন্ট ডিলিট করে দিন।

২. টাইমজোন সেট করুন

গুরুত্বপূর্ণ ওয়ার্ডপ্রেস সেটিং

আরো দুটি গুরুত্বপূর্ণ সেটিং খুজে পেয়েছি Settings < General  অপশনে।

আপনার স্থানীয় সময়টি আপনার টাইমজোনটি সেট করুন যাতে আপনি যখন পোস্টগুলি নির্ধারণ করেন তখন সেগুলি আপনার সময় অনুযায়ী লাইভ হয়ে যায়।

আরো একটি গুরুত্বপূর্ণ সেটিং রয়েছে তাহল আপনার সাইটের টাইটেল এবং ট্যাগলাইন। এই দুটি আপনি যে কোন সময় পরিবর্তন করতে পারবেন। এই দুটি গুরুত্বপূর্ণ কারন এগুলো গুগল সার্চে দেখাবে। 

ওয়ার্ডপ্রেস সেট আপ

এখান থেকে আপনি Admin Email সেট করতে পারবেন।

৩.Enable/Disable User Registration

ওয়ার্ডপ্রেস সেটিং

আপনাকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে আপনি কি একা ব্লগিং করতে চান, না মাল্টি অথোর ব্লগ তৈরি করতে চান।

যদি আপনি গেস্ট ব্লগিং চালু করতে চান তাহলে অনেক “spam” রেজিষ্ট্রেশন পেতে প্রস্তুত হয়ে যান। যদিও আপনি প্লাগিন এর মাধ্যমে ঠিক করতে পারবেন।

যদি এমনটাই চান তাহলে “anyone can register” বক্সে টিক দিয়ে দিন এবং New user role হিসেবে CONTRIBUTOR দিন।

আর যদি এমনটা না চান তাহলে Anyone Can Register বক্সে টিক দিবেন না।

৪.WordPress Discussion/Comments setting 

Wordpress comment and discussion setting

এখন Setting < Discussion এ যাবেন 

যদি না জানেন কিভাবে কি করবেন তাহলে উপরের স্কিনশট দেখুন।

৫. WordPress Ping List

Wordpress ping service

ডিফল্ট ভাবে ওয়ার্ডপ্রেসে মাত্র একটি পিং সার্ভিস থাকে। কিন্তু আপনি এখানে আরো পিং সার্ভিস যোগ করতে পারেন।

এজন্য Setting>Writing অপশনে যাবেন।

৬. WordPress Media setting

ডিফল্ট ভাবে আপনি যখন ওয়ার্ডপ্রেস এ কোন ইমেজ আপলোড করেন এটি বিভিন্ন সাইজে আপলোড হয়।  আর এটি মোটেও ভাল কথা নয়। এতে আপনার ওয়েবসাইটের লোডিং টাইম বেড়ে যাবে।

তাই Setting>Media অপশনে যাবেন এবং নিচের মত করে সেট-আপ করুন।

ওয়ার্ডপ্রেস মিডিয়া সেটিং

আমি আরো বলব, অবশ্যই ইমেজ কম্প্রেশন হিসেবে ShortPixel Plugin ব্যবহার করবেন।

৭. WordPress Permalink Setting

ওয়ার্ডপ্রেস পারমালিং সেটিং

ডিফল্ট পারমালিংক হিসেবে ওয়ার্ডপ্রেসে Yourdomain.com/p=123 দেওয়া থাকে। এবং এটি মোটেও Seo ফ্রেন্ডলি নয়। 

Setting>permalink থেকে “PostName” সিলেক্ট করুন।

৮. Configure Google Tag manager

এই সময়ে আপনি হয়তো অনেক স্ক্রিপ্ট যেমন, গুগল অ্যানালিটিক্স, ফেসবুক পিক্সেল, আরো অনেক স্ক্রিপট ইন্সটল করেছেন।  গুগল ট্যাগ ম্যানেজার এর মাধ্যমে সিঙ্গেল ড্যাশবোর্ড (a.k.a. tags) খুব সহজে ম্যানেজ করতে পারবেন।

৯. Google analytics install

গুগল অ্যানালেটিক্স হল একটি ফ্রী প্রোগ্রাম যার মাধ্যমে আপনি সাইটের সব ধরনের ট্রাফিক সম্পর্কে জানতে পারবেন। এটি সেট-আপ করতে ১০-১৫ মিনিট সময় লাগতে পারে। সবাই ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করার পর এই কাজটি অবশ্যই করে।

১০. একটি cache plugin ইন্সটল করুন।

Cache plugin আপনার ওয়েবসাইট ফাস্ট রাখতে সাহায্য করে। প্রত্যেক বার যখন ভিজিটর আপনার ওয়েবসাইট ভিজিট করে, আপনার সার্ভার ডাটাবেজ সংগ্রহ করে ফুল হয়ে যায়।

সেরা কয়েকটি প্লাগিন হল,

১. wp rocket

2. W3 total cache

3. Wp faster cache

১১.Disable Directory Browsing

এজন্য আপনার ওয়ার্ডপ্রেস এর .htaccess ফাইল এডিট করতে হবে। ভয় পাবেন না। এটা খুব সহজ।

Options All -Indexes

উপরের কোডটি (.htaccess) ফাইলের একেবারে নিচে পেস্ট করে দিবেন। এটি আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের সিকিউরিটি মেইনটেনিং জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

আপনি এই ধরনের আরো কয়টি সেটিং জানেন? আপনি সব ওয়ার্ডপ্রেস ইউজারদের কোন সেটিংগুলো অবশ্যই করতে বলবেন। অবশ্যই নিচে কমেন্টে জানিয়ে দিবেন।

এই ধরনের আরো পোস্ট পেতে অবশ্যই আমাদের সাথেই থাকবেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *