WordPress.com বনাম WordPress.org কোথায় শুরু করবেন?

যখন আমরা ব্লগিং শুরু করার চিন্তা করি আমাদের সামনে অনেক বিকল্প চলে আসে। এর মধ্যে ব্লগার, ওয়ার্ডপ্রেস, মিডিয়াম ডটকম, টাম্বলার অনেক জনপ্রিয়।

আপনি কোন প্লাটফর্মে ব্লগিং শুরু করবেন এটা আপনার ব্লগের ধরনের উপর নির্ভর করে এবং আপনার ব্লগ সাইট দিয়ে আপনি কি করবেন।

যদি আপনি মজা করার জন্য ব্লগিং করেন এবং হোস্টিং নিয়ে চিন্তা করেন তাহলে ব্লগস্পট অথবা  ওয়ার্ডপ্রেস ডটকম এর মাধ্যমে শুরু করতে পারেন। এগুলো ফ্রী এবং ম্যানেজ করা অনেক সহজ।

যদি আপনি ব্লগিং ব্যবসা অথবা টাকা আয় করার জন্য করেন তাহলে প্রোফেশনাল প্লাটফর্ম wordpress.org এর মাধ্যমে শুরু করতে পারেন।

আজকে আপনাদের সাথে শেয়ার করব ওয়ার্ডপ্রেস কি? ওয়ার্ডপ্রেস এর দুটি ভিন্ন ভার্শন (wordpress.com এবং wordpress.org) এর মধ্যে পার্থক্য কি?

যাতে আপনার বুঝতে সহজ হয় ওয়ার্ডপ্রেস এর কোন প্লাটফর্মে ব্লগিং শুরু করলে ভাল হবে।

ওয়ার্ডপ্রেস প্লাটফর্ম কি?

WordPress ছিল একটি ব্লগিং টুল এবং পরে যুক্ত হয়েছে সম্পূর্ণ (CMS) কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম।

ওয়ার্ডপ্রেস এর প্রথম ভার্শন রিলিজ হয়েছে ২০০৩ সালে(as an open source project licensed under GPLV2.)

বিগত ১৫ বছরে ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগ এবং ওয়েবসাইট তৈরির প্লাটফর্ম হিসেবে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়তা লাভ করেছে।

ওয়ার্ডপ্রেস এর Based হল PhP এবং MySQL. নির্মাতা Mullenweg এবং Mike Little. ওয়ার্ডপ্রেস এর নিজস্ব কোম্পানি Automatic.

এটি আপনাকে অনেক সার্ভিস এবং প্রোডাক্ট অফার করে যেমন, wordpress.com, vaultpress, jetpack, videopress, wordpress vip, Gravatar এবং আরো অনেক কিছু।

ওয়ার্ডপ্রেস সম্পর্কে আরো গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানতে নিচের দিকে এগিয়ে যান।

এখানে ওয়ার্ডপ্রেস সম্পর্কে আরো দুটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় রয়েছে যা নতুনদের জানা দরকার।

ওয়ার্ডপ্রেস থিম

সাধারন ওয়েবসাইট তৈরির মত নয়, আমরা সবাই জানি যে ওয়ার্ডপ্রেস এর রয়েছে অনেক বড় কমিনিটি।

এখানে অনেক ফ্রীল্যান্স ডিজাইনার এবং ডেভালপমেন্ট কোম্পানি রয়েছে যারা আপনাকে ফ্রী এবং প্রিমিয়াম থিম অফার করে।

বর্তমানে ওয়েবমাস্টারদের যে বড় চ্যালেঞ্জ এর মুখোমুখি হতে হয় তাহল ওয়েবসাইট অনেক সুন্দর করে ডিজাইন করা।

আপনি ওয়ার্ডপ্রেস এর অফিসিয়াল সাইট অথবা থার্ডপার্টি সাইট থেকে ফ্রী থিম ডাউনলোড করতে পারেন। এবং প্রিমিয়াম থিম কিনতে কিছু টাকা ব্যয় করতে পারেন।

আপনি মাত্র কয়েক ক্লিকেই আপনার থিমের ডিজাইন পরিবর্তন করতে পারেন। ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট অথবা ব্লগ তৈরি করতে ব্যবহার করা হয়। আর থিম এই কাজটি খুব সহজ করে দিয়েছে এবং যে কেউ কোন কোডিং জ্ঞান ছাড়াই ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবে। 

ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন

আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে নতুন ফিচার যুক্ত করতে প্লাগিন ব্যবহার করা হয়। আপনি যদি ওয়েবসাইটে নতুন কোন ফিচার যুক্ত করতে চান, তাহলে সেই ফিচার যুক্ত প্লাগিং খুজে ইন্সটল করুন।

ওয়ার্ডপ্রেস এ প্লাগিনই সব। ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন হল এক ধরনের অ্যাপ্লিকেশন যেমনটা আপনার মোবাইলের অ্যাপ্লিকেশনগুলি কাজ করে।

ওয়ার্ডপ্রেস এ হাজার-হাজার প্লাগিন রয়েছে এবং নতুনদের জন্য এটা কিছুটা কঠিন তাদের প্রয়োজনীয় প্লাগিন খুজে বের করা। আপনি চাইলে আমাকে এই বিষয়ে জিজ্ঞেস করতে পারেন।

wordpress.com বনাম wordpress.org পার্থক্য কি?

ওয়ার্ডপ্রেস এর দুটি ভিন্ন ভার্শন রয়েছে, WordPress.com এবং wordpress.org.

 Wordpress.org জনপ্রিয়ভাবে সেল্ফ হোস্টেড ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগ হিসেবে পরিচিত।

WORDPRESS.COM:  

wordpres.com হল একটি ফ্রী ব্লগিং প্লাটফর্ম যার মাধ্যমে যে কেউ ফ্রী ব্লগ তৈরি করতে পারবে।

যখন আপনি wordpress.com এর মাধ্যমে ব্লগ তৈরি করবেন আপনি একটি সাবডোমেইন পাবেন যেমন (name.wordpress.com)

আপনার ব্লগ ওয়ার্ডপ্রেস সার্ভারে হোস্ট করা হবে। যারা ব্যক্তিগত লেখালেখি করার জন্য হোস্টিং ছাড়াই ব্লগ তৈরি করতে চান তাদের জন্য পারফেক্ট হবে।

এখানে অনেক পেইড add-ons রয়েছে। আপনি চাইলে কাস্টম ডোনেইন নেইম, পেইড থিম এবং আরো অনেক কিছু কিনতে পারবেন।

wordpress.com এ অনেক সীমাবদ্ধতা রয়েছে। সবচেয়ে বড় দুটি সীমাবদ্ধতা হল,

১. থার্ডপার্টি প্লাগন ইন্সটল করতে পারবেন না।

২. থিম পছন্দ করার ক্ষেত্রে সীমাবদ্ধতা।

ব্যক্তিগত ব্লগ তৈরির ক্ষেত্রে অপশনটা খারাপ না। ব্লগ ম্যানেজ করতে ওয়ার্ডপ্রেস টিম আপনাকে ভাল সহযোগিতা করবে।

কিছু দিক দিয়ে worspress.com ভাল:

ব্যক্তিগত জার্নাল টাইপ ব্লগ তৈরি করতে। কোম্পানির বিজ্ঞাপনের জন্য ওয়েব-স্পেস দরকার, যেখানে নকশা এবং ব্র্যান্ডিংয়ের মতো বিষয়গুলি গুরুত্বপূর্ণ নয়।

যে দিক থেকে wordpress.com ভাল নয়:

  • যারা আয় করার জন্য ব্লগ তৈরি করতে চান।
  • কোম্পানিগুলো মার্কেটিং চ্যানেলের জন্য কন্টেন্ট মার্কেটিং ব্লগ তৈরি করতে চান।
  • যারা তাদের ব্লগের উপর সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ চান।
  • adsense অথবা infolink এর মত অ্যাড নেটওয়ার্ক থেকে ইনকাম করতে চান।
  • যারা অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের জন্য ব্লগ তৈরি করতে চান।

এখানে আপনি তাদের অফিসিয়াল (official TOS pages) সাইটে সব তথ্য পেয়ে যাবেন।

WordPress.org aka self hosted platform:

যদি ব্লগ তৈরি করতে চান আয় করার জন্য, ছোট বিজনেস ওয়েবসাইট, অথবা অন্য কোন বিষয় যেমন একটি ই-কমার্স ওয়েবসাইট তাহলে WordPress.org হল সম্পূর্ণ সমাধান

wordpress.org ব্যবহার করার জন্য, অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে ওয়ার্ডপ্রেস ডাউনলোড করে নিজের হোস্টিং সার্ভারে ইন্সটল করতে হবে।

অনেক হোস্টিং কোম্পানি এবং স্ক্রিপ্ট রয়েছে যার মাধ্যমে আপনি মাত্র এক ক্লিকে ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করতে পারবেন।

আমি wordpress.com এবং wordpress.org এর পার্থক্য নিয়ে পরে লিখব। প্রথমে wordpress.org এর কিছু সুবিধা এবং বৈশিষ্ট্য সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

WordPress.org, সত্যিই, wordpress.com এর সকল সীমাবদ্ধতা দূর করেছে এবং ব্লগের উপর সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন।

আপনি,

কাস্টমস থিম তৈরি/থার্ডপার্টি থিম ইন্সটল করতে পারবেন।

থার্ডপার্টি প্লাগিন ব্যবহার করতে পারবেন।

যেভাবে খুশি মনিটাইজেশন করতে পারবেন। যেমন, গুগল অ্যাডসেন্স, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং, টেক্স অ্যাড, পেইড রিভিউ ইত্যাদি। 

ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগ শুরু করতে কত টাকা খরচ হয়?

নিচের চার্ট থেকে wordpress.com এবং wordpress.org এর বেসিক পার্থক্য দেখে নিন।    

Wordpress.com Wordpress.org
ফ্রী(পেইড সার্ভিস রয়েছে) সেট-আপ এবং রান করানোর জন্য টেকনিকাল জ্ঞানের দরকার
২২০+ থিম রয়েছে। css নিজেই মডিফাই এবং এডিট করা যাবে। কাস্টম থিম ইন্সটল করা যাবে। নিজের তৈরি অথবা ডাউনলোড করা যে কোন থিম ব্যবহার করা যাবে।
থার্ডপার্টি প্লাগিন ব্যবহার করা যাবে না। নিজের তৈরি অথবা ডাউনলোড করা যে কোন প্লাগিন ব্যবহার করা যাবে।
সেট-আপ, ব্যক-আপ, আপগ্রেড, সিকিউরিটি সব তারাই নিয়ন্ত্রণ করবে? সেট-আপ এবং রান করানোর জন্য টেকনিকাল জ্ঞানের প্রয়োজন।
কোডিং এর মাধ্যমে নতুন ফিচার যুক্ত করার কাজ তারাই করবে টেকনিক্যাল মাইন্ডেড হলে কোডিং এ সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন।
ব্লগে শতাধিক সার্ভার থাকলে ভিজটরদের কারনে সার্ভার ডাউন হয়ে যাবে। কম ভিজিটরের জন কামদামি হোস্টিং বেশি ভিজিটরের জন্য বেশি হোস্টিং কিনতে পারেন।
পোস্ট অটোমেটিক ব্যাক-আপ হবে অটোমেটিক ব্যাক-আপ পেতে vaultpress লাগবে
ফ্রী স্টাফ সাপোর্ট এবং গ্রেট কমিউনিটি এবং সাপোর্ট ফোরাম গ্রেস্ট কমিউনিটি এবং সাপোর্ট ফোরাম

আশাকরি এই আর্টিকেলটি আপনাকে বুঝতে সাহাজ্য করবে, ওয়ার্ডপ্রেস কি? wordpress.org এবং wordpress.com এর মধ্যে পার্থক্য।

আমি আরো আশাকরি, আপনি ওয়েবসাইট কোন প্লাটফর্মে শুরু করবেন তা বুঝতে সাহায্য করবে।

ওয়ার্ডপ্রেস সম্পর্কে কিছু মজার তথ্য:

১. বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় কিছু ওয়েবসাইট যেমন, techcrunch, shoutmeloud, cnn, forbes ইত্যাদি wordpress vip এর মাধ্যমে তৈরি।

২. বিশ্বের ৩০% ওয়েবসাইট ওয়ার্ডপ্রেস এর মাধ্যমে তৈরি।

৩.ওয়ার্ডপ্রেস অ্যাপ সব জনপ্রিয় মোবাইল প্লাটফর্মে রয়েছে যেমন(Android, IOS, BlackBerry)

৪.আপনার blogger.com এবং wordpress.com ব্লগ seo না হারিয়ে wordpress.org তে ট্রান্সফার করতে পারেন।

৫. ওয়ার্ডপ্রেস অন্যান্য ওয়েবসাইট তৈরিতে ও ব্যবহার করা হয় যেমন,
directory websites, affiliate systems, portfolio websites, ticketing systems, and so on.
ওয়ার্ডপ্রেস এর জন্য প্লাগিনই প্রায় সবকিছু।

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *